Text size A A A
Color C C C C
পাতা

অফিস সম্পর্কিত

অফিস পরিচিতিঃ-

 

বাংলাদেশ একটি উন্নয়নশীল দেশ। এদেশে পাকিস্থান আমলেই গবাদি পশু ও হাঁস মুরগী পালনের গুরুত্তব জনগন অনুভব করে। সেজন্যই বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পূর্বেই পশুপালন বিভাগের আওতাধীন বৃহত্তর ঢাকা জেলার দোহাওে  ৫৮ শতাংশ জমির উপর একটি পশুহাসপাতাল নির্মিত হয় আনুমানিক ২২-১০-১৯৬৪ সালে। তখন নবাবগঞ্জ ও দোহার মিলে একটি থানা প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। নবাবগঞ্জ থানা ঘেড়ে আনুমানিক প্রায় ২০ কিমি দূরে থানা পশুপালন অফিস স্থাপিত হয়। পরবর্তীতে ১৯৮২ সালে গবাদিপশুর কৃত্রিম প্রজনন কাজের জন্য একটি এ,আই বিল্ডিং নির্মিত হয়। এরপর পশু হাসপাতাল ও থানা পশু পালন অফিস আনুমানিক ২৪-০৮-১৯৮৪ সালে মেরামত করা হয়। ১৯৮২ সালে এদেশে সামরিক শাসন জারি হওয়ার পর দেশে পূর্বের ১৯টি জেলাকে ভাগ করে ৬৪টি জেলা এবং থানাগুলোকে উপজেলায় উন্নীত করা হয়। তাই নবাবগঞ্জ থানাকে ভাগ করে দোহার উপজেলা নামে একটি নতুন উপজেলা এবং তারই পরিপ্রেক্ষিতে পশুপালন বিভাগের নাম পরিবর্তন করে উপজেলা পশুসম্পদ অফিস নাম দেওয়া হয়। এরপর এদেশে ১৯৮৮ সালে ভয়াবহ বন্যা দেখা দেয়। যার ফলে অফিসের আসবাবপত্র সহ ভবনের পুরোটাই ক্ষতিগ্রস্থ হয়। এরপর পুনরায় পুরাতন ভবন ভেঙ্গে উপজেলা পশুসম্পদ উন্নয়ন কেন্দ্র থেকে ২০০৪ সালে এই জায়গাতেই একটি নতুন অফিস ভবন নির্মান করা হয়। যা তৎকালীন সরকারের মাননীয় মন্ত্রী মহোদয় কর্তৃক ২৪-১২-২০০৪ তারিখে উদ্বোধন করা হইয়াছে। ২০০৯ খ্রিঃ সালের ডিসেম্বর মাসে ‘‘পশুসম্পদ  নামকে  ‘‘ প্রাণিসম্পদ’’ নামে পরিবর্তন করা হয়।

 

 

 

১। প্রাণিসম্পদ কার্যালয়ের জমির আযতন- ৫৮শতাংশ।

২। স্থাপনাসমূহ-

                অফিস ভবন- ১টি।

                ডরমেটরী ভবন - ১টি (কর্মচারীদের জন্য)

                পোল্ট্রি সেড পরিত্যক্ত- ১টি,

                পুরাতন অফিস ভবন- ১টি,

ছবি